জীবজন্তুর সঙ্গে একাত্মতা বাড়ছে শহরবাসীর

দুবেলাঃ বন্যপ্রাণের সঙ্গে মানুষের একটা সম্পর্ক মানব সভ্যতার আদি কাল থেকেই দেখা যায়৷ শহুরে মানুষের সেই ‘বন্ডিং’কেই একটু উসকে দিতে চেয়ছিলেন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ৷ জীবজন্তুদের দত্তক নেওয়ার প্রক্রিয়ায় শুধু দায়বদ্ধতাই নয়, জীবজন্তুদের দেখভালের জন্য একটা নিশ্চয়তার পথ খুঁজতে চেয়েছিল কলকাতা চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ৷

বন্যদের দত্তক নিতে বছর পাঁচেক আগে যে আগ্রহ দেখিয়েছিল শহর তা মাঝপথে একরকম মুখ থুবড়ে পড়ে৷ যদিও এবার এই উদ্যোগ ঘুরে দাঁড়িয়েছে৷ 2013 সালে যেখানে চল্লিশটিরও বেশি পশুপাখি তাদের দত্তক নেওয়া অভিভাবক পেয়েছিল, সেখানে গেল বছর দত্তক নেওয়া পশুপাখির সংখ্যা মাত্র দশটিতে এসে দাঁড়ায়৷ পরিস্থিতি এমনই দাঁড়ায় অভিনব এই উদ্যোগ শুরুর পাঁচ বছরের মধ্যেই তার ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন ওঠে৷ শুরু হয় নতুন উদ্দোমে প্রচার অভিযান৷ চিড়িয়াখান কর্তৃপক্ষ যার ফলও পেযেছেন হাতেনাতে৷ এবার মোট 31টি জীবজন্তু দত্তকের আওতায় এসেছে৷

চিড়িয়াখানায় এদিন বিশ্ব পরিবেদ দিবসের এক বিশেষ অনুষ্ঠানে পশুপাখিদের দত্তকগ্রহণকারীদের হাতে শংসাপত্র তুলে দিল চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ৷ উদ্যোগটিকে নিয়ে নতুন করে আশার আলো দেখছে চিড়িয়াখানা৷ শুধু নাগরিকরাই নয়, স্টেট ব্যাঙ্কের মতো বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও মযূর, ম্যাকাওদের দত্তক নিতে এগিয়ে এসেছে৷ দত্তক নিতে গড়ে মাসে হাজার দশেক টাকা খরচ হয়৷ এছাড়া জীবজন্তুর দত্তক নেওয়ার আবেদন করা যেতে পারে অনলাইনে৷ চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দত্তর নিতে পুরো প্রক্রিয়ার জন্য সময় লাগে মাত্র তিন চার দিন৷

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Related posts

Leave a Comment