রাজ্যের D. EL. ED পড়ুয়াদের জন্য সুখবর দিল কলকাতা হাইকোর্ট!

দুবেলাঃ রাজ্যের সবস্তরের D. EL. ED পড়ুয়াদের জন্য স্বস্তির খবর। প্রাইমারি শিক্ষকদের জন্য এতদিন এই কোর্স বাধ্যতামূলক ছিল। কিন্ত এবছরের জানুয়ারি মাসে NCTE নোটিস দিয়ে জানায় বিএড কোর্স পাস হলে তারাও প্রাইমারি টিচার হতে পারবেন, মানে পরীক্ষায় বসতে পারবেন। এর ফলে হাজার হাজার বি.এড ডিগ্রি প্রাপ্তদের সামনে চাকরি পাওয়ার একটা নতুন সুজোগ তৈরি হল।একই সঙ্গে যে সমস্ত ছেলেমেয়ে উচ্চমাধ্যমিক পাস করেই D. EL. ED কোর্স করেছে তাদের কপালে চিন্তার ভাজ দেখা দেয়।

এতে আপত্তি জানিয়ে কোর্টের দারস্থ হয় D. EL. ED পড়ুয়ারা। তাদের দাবি এতে এই কোর্সের গুরুত্ব কমবে। এর জন্য রাজ্যের প্রায় ৬০০ কলেজ বন্ধের মুখে পড়বে। এরপর গতকাল বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সিঙ্গেল বেঞ্চে NCTE জানায় আপাতত এরাজ্যে এই নির্দেশ কার্যকরী হবেনা। ফলে স্বস্তিতে এই রাজ্যের পড়ুয়ারা।

যদিও বিএড প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রাথমিকে শিক্ষকতা করা যাবে না বলে আগেই জানিয়েছিল রাজ্য সরকার । কেন্দ্রীয় সরকার চাপিয়ে দিলেও নিয়মটি মানছে না রাজ্য। উচ্চমাধ্যমিকে অন্তত ৫০ শতাংশ নম্বর ও দু’বছরের ডিএলএড প্রশিক্ষণ থাকা প্রার্থীরাই এ রাজ্যে প্রাথমিকের টেট-এ বসতে পারবেন বলে জানিয়েছিলেন পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য।

NCTE (ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর টিচার এডুকেশন)র এই বিজ্ঞপ্তির পরই পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য জানিয়েছিলেন,  রাজ্যের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকারও এই ধরনের টেট নেয়। সেখানে বিএড প্রার্থীরা আবেদন করতে পারেন। কিন্ত পশ্চিমবঙ্গ সরকার এখনও এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়নি। রাজ্য সরকারের তৈরি করা নিয়মে বিএড প্রশিক্ষণ থাকা প্রার্থীরা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা টেট-এ বসতে পারবেন না।

Spread the love
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

Related posts

Leave a Comment