ব্যথা নিয়ে অস্থির, সমাধান দেবে ‘ব্যথা দূর হটো’!

দুবেলাঃ জীবনযুদ্ধে চলতে গিয়ে মানুষের অনেক কিছুর সম্মুখীন হতে হয়। তার মধ্যে অন্যতম হল সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে শারীরিক দিক দিয়ে পরিবর্তন। এর সঙ্গে শারীরিক ব্যথাবেদনা সর্বক্ষনের সঙ্গী। সেই ব্যথাকে দূর করতে আমরা অনেক কিছুর পথ বেছে নিই। যেমন আধুনিক বা আদ্যিকালের অনেক পন্থা। কিন্তু সেই পন্থা কতটা সঠিক বা বেঠিক তা না জেনেই আমরা ব্যথা দূর করতে সেই পন্থা বাড়িতে অবলম্বন করি। তা থেকে অনেকের বড় বিপদেরও সম্মুখীন হতে হয়। এই ব্যথা দূর করার জন্য অনেকই ভুল পন্থা অবলম্বন করে থাকেন, তার পর বিপদে পড়ে চিকিৎসকদের কাছে হাজির হন।…

আপনার কোলেস্টেরল আছে, চিন্তা নেই কমবে প্রাকৃতিক উপায়ে!

দুবেলাঃ কোলেস্টেরল হল মানব শরীরের সেই খারাপ ফ্যাট বা চর্বি যা গিয়ে জমে শিরা এবং ধমনির প্রাচীরে। এবং যার জেরে বাধা পায় শরীরের স্বাভাবিক রক্ত প্রবাহ। আর এই রক্ত প্রবাহের বাধা মানেই হার্ট অ্যাটাক বা হার্ট ফেইলিয়র। গবেষনা জানাচ্ছে, কিছু প্রাকৃতিক ফল এবং সব্জী এমন আছে যারা এই খারাপ কোলেস্টেরলদের নষ্ঠ করতে পারে। যার জেরে কমে হার্টের সমস্যা। এমনই কয়েকটি খাবার হল, অ্যাভোগ্রাড্রো, ব্রকলি, কমলা লেবু এবং অন্যান্য সাইট্রাস জাতীয় ফল, কফি, আপেল, স্পিন্যাচ, ওমেগা থ্রি যুক্ত বড় মাছ, আমন্ড, আখরোট এবং তরমুজ।

মঙ্গল গ্রহে শব্দের খোজ পেল নাসা!

দুবেলাঃ আরও একাবার নিজের কাজে বড় সাফল্য পেল নাসা। দীর্ঘ দিনের প্রচেষ্টায় এবার মঙ্গল গ্রহের নানান তথ্য পাবে পৃথিবীবাসী নাসার হাত ধরে। প্রায় ২০০ দিন পর সৌরজগৎ চষে বেড়িয়ে মঙ্গল গ্রহে পৌচ্ছে ইনসাইট। ইনসাইট মিশন সাফল্যলাভের কয়েক মধ্যে মঙ্গল গ্রহ থেকে সেখানকার নানারকম ছবি পাটিয়েছিল নাসার দপ্তরে। সেই ছবি পাঠানোর পর এবার সেখানকার শব্দতরঙ্গ ও ভুমিকম্পের পরিমাপ সহ আর বেশ কিছু গুরুত্বপূন্য তথ্য পাঠালো ইনসাইট। এর ফলে নাসার মুকুটের একটি নতুন পালক যুক্ত হল। মঙ্গল গ্রহলের নানা বিষয় খতিয়ে দেখতে গিয়েছে ইনসাইট।

ফের 105 বছর পর! বিরল চন্দ্রগ্রহণ দেখা হল না কলকাতার

দুবেলাঃ  আবার দেখা যাবে 2123 সালের 19 জুন৷ আজ থেকে ঠিক 105 বছর পর৷ নাসার তথ্য বলছে এই পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণের সময়সীমা হবে 1 ঘন্টা 86 মিনিট 6 সেকেন্ড৷ অর্থাত গেল রাত বা শুক্রবারের চন্দ্রগ্রহণের থেকে মাত্র তিন মিনিট বেশি৷ বিরল এই মহাজাগতিক ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটা বিশ্বের জ্যোতির্বিজ্ঞানী থেকে সাধারণের অনেকের মধ্যে এদিন উতসাহের খামতি ছিল না৷ তবে রাতভোর মেঘ বৃষ্টির খেলা কলকাতাকে হতাশ করেছে৷ বিভিন্ন জায়গাতে উতসাহী পড়ুয়া থেকে শুরু করে আগ্রহী অনেকেই টেলিস্কোপ, বাইনোকুলার নিয়ে ছাতে জড়ো হয়েছিলেন৷ কিন্তু সব প্রত্যাশ জল ঢেলেছে বৃষ্টি৷ গভীর রাত অবধি টেলিস্কোপ…

কবে শেষ বই পড়েছেন? যদি শরীর সুস্থ রাখতে চান বই পড়ুন

দুবেলাঃ কবে শেষ বই পড়েছেন মনে আছে! যদি এই অভ্যাস নেই তাহলে তাড়াতাড়ি বই পড়া শুরু করুন। কারণ, বই পড়লে জ্ঞান-বুদ্ধি বাড়বে সে বিষয় তো কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু আপনাদের কি জানা আছে শরীর সুস্থ রাখতেও এই অভ্যাস দারুণ ভাবে সাহায্য করে থাকে। তাই তো নিয়মিত ঘন্টা খানেক করে বই পড়ুন। আর এমনটাইর পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকেরা। যে কারণে বই পড়লে তার সুফল শরীরের ওপরও পড়ে। এই যেমন ধরুন, 1. মানসিক শান্তির সন্ধান মেলে 2. বিশ্লেষণ ক্ষমতার উন্নতি ঘটে 3. স্ট্রেস কমতে শুরু করে 4. মনোযোগ ক্ষমতার উন্নতি ঘটে 5.…

আপনার খাবারে পোকা? কোন খাবার?

দুবেলা: সারা জীবনে কত জীবাণু আর পোকা খেয়েছেন তার কোনও ঠিক আছে নাকি? আর তার করণ হল ফুড কালার এমনটাই বলছে বিবিসি-র একটি রিপোর্ট। সফট ড্রিংক, কাপকেক, জেলি- এসবে থাকে এই বিষাক্ত ফুড কালার। যার মধ্যে রয়েছে ‘কার্মাইন’ নামে একটি জিনিস, যা নাকি তৈরি হয় কিছু পোকা থেকে। পেরুতে রীতিমত চাষ হয় সেই পোকার।

স্টেট ব্যাঙ্কের অভিনব পরিষেবা, এটিএম ছাড়াও তোলা যাবে টাকা

দুবেলা: কয়েক দিন আগেই দেশ জুড়ে এটিএমে টাকার ঘাটতির খবর প্রকাশ্যে আসে। রাজধানীসহ অন্ধ্র, তেলেঙ্গানা, কর্নাটক ও বিহারে এটিএম ও ব্যাঙ্কে নগদের আকাল দেখা দেয়। সে সময়ে পরিষেবা না পেয়ে নাজেহাল হয়েছেন অনেক গ্রাহকও। সমস্যা মেটাতে এবার পয়েন্ট এব সেলস বা পিওএস মেশিনে তোলা যাবে টাকা। কী এই পরিষেবা? অনেকস্ত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে এসবিআই-এর পিওএস রয়েছে। ডেবিট কার্ডের সাহায্যে সেখান টাকা তোলার সুবিধে মিলবে। গ্রাহকদের আর ছুটতে হবে না এটিএমে। এমনকি এটিএমে টাকার আকাল পড়লেও ‘কই বাত নেহি’। আর এই পরিষেবার জন্য আলাদা কোনও মাশুল গুনতে হবে না গ্রাহককে। অন্য যে…

রেলের গতি আরও বাড়বে- রেলমন্ত্রী

দুবেলা: রেলের বৈদ্যুতিকরণ সম্প্রসারণের জন্য একটি মিশন গ্রহণ করেছে রেলমন্ত্রক। এমনটাই জানালেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। তিনি আরও জানান, যাত্রী সুবিধায় রেলের গতি বাড়াতে ও পরিবেশ রক্ষায় এই মিশন গ্রহণ করা হয়েছে। দিল্লিতে এক সাংবাদিক বৈঠকে রেলমন্ত্রী বলেন, রেলের বৈদ্যুতিকরণের কাজ সম্প্রসারিত করতে আমরা দ্রুত ও দ্বিগুণ গতিতে কাজ করছি। এর ফলে রেলের গতি ও পরিবেশ দূষণ রক্ষা দুই হবে।”