২০১৮ বিশ্বকাপ ফুটবলের ১২ মাঠ

নিজেস্ব সংবাদদাতাঃ গোটা বিশ্ব যখন বিশ্বকাপ ফিভারে ভুগচ্ছে । অন্যদিকে যখন আর কিছু মুহূর্তের অপেক্ষা ফুটবল বিশ্বযুদ্ধের । রাশিয়েতে মোট এগারো শহরের ১২ টা স্টেডিয়ামে খেলা হবে । আর এই সব স্টেডিয়াম গুলো বিশ্বকাপের জন্য নতুন করে সেজেছে।

প্রথমত মস্কোর লুজনিকি স্টেডিয়ামে শুরু হবে এই বিশ্বযুদ্ধ। পাশাপাশি ৪টি প্রথম পর্বের ম্যাচ একটা সেমি ফাইনাল এবং ফাইনাল ম্যাচ নিয়ে এই স্টেডিয়ামে খেলা হবে মোট ৭টা ম্যাচ। যার জন্য এই স্টেডিয়াম সেজেছে নতুন করে।২০১৩ থেকে শুরু হয় এর  মেকওভারের কাজ শেষ হয় ২০১৭ । এই স্টেডিয়ামে মোট আসন সংখ্যা ৬১ হাজারের অধিক।

পাশাপাসি মোট ছয়টা ম্যাচ খেলা হবে সামারার কসমস স্টেডিয়ামে। ৪ টি প্রথম পর্বের ম্যাচ একটি দ্বিতীয় পর্বের ম্যাচ, এবং একটি কোয়াটার ফাইনাল ম্যাচ। যার আসন সংখ্যা ৪৪হাজার নয়শ আঠেরো ।এটি নব রুপে নির্মাণ করতে সময় লাগে ২০১৪ থেকে ২০১৭। এর পর যে স্টেডিয়ামটি রয়েছে তার নাম রস্তভ স্টেডিয়াম  যেখানে ৪তি গ্রুপ ম্যাচ একটি সেকেন্ড রাউন্ড ম্যাচ নিয়ে পাঁচটা খেলা হবে। এটিও ২০১৪ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত সময় লেগেছে নতুন করে সাজাতে। এখানে মোট আসন সংখ্যা ৪৫হাজারের অধিক। ৪৪ হাজার পাঁচশো আটষট্টি জন দর্শক আসন সহ ভলগ্রেগ্রাদ স্টেডিয়াম সেজে উঠেছে ২০১৫ থেকে ২০১৭ সালে। যাতে ৪ টি গ্রুপ ম্যাচ খেলা হবে ।অন্যদিকে আরও একটি স্টেডিয়াম যেখানে চারটি গ্রুপ ম্যাচ হবে সেতি হল মরদভিয়া স্টেডিয়াম। ২০১০ থেকে টানা ৭ বছর সময় লেগেছে এটি সাজাতে। যাতে আসন সংখ্যা চুয়াল্লিশ হাজার চারশো বেয়াল্লিশ।

কাজান স্টেডিয়ামে খেলা হবে ৪ টি গ্রুপ পর্বের ম্যাচ,একটি সেকেন্ড রাউন্ড একটি কোয়াটার ফাইনাল ম্যাচ দেখতে যেতে পারবে  ৪৫ হাজার  তিনশো ঊনআশি জন দর্শক। ২০১৩ এর আগে এটি বানাতে সময় লেগেছিল প্রায় তিন বছর। কালিনিরাদ স্টেডিয়াম যেখানে মোট আসন পয়ত্রিরিশ হাজার দুশবার জন দর্শক। এই স্থানে খেলা হবে ৪ টি। ২০১৫ থেকে দু বছর ধরে এটি নব-নির্মিত হয়। এছাড়াও ২০১৫ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত সময় নিয়ে নির্মাণ হয় নভয়ঁত স্টেডিয়াম। ৪টি গ্রুপের খেলা ১ টি ।কোয়াটার ফাইনাল ও একটি দ্বিতীয় পর্বের খেলা হবে এই এরিনাতে। পির্টাস বার্গের শহরে সেন্ট পির্টাস বার্গ স্টেডিয়াম ফিস্টেট স্তেদিউয়াম ৪৭ হাজার ৬৫৯ জন দর্শক এখানে একটি সেকেন্ড রাউন্ড এবং একটি থার্ড প্লেসের খেলা হবে এই মাঠে। এবং সেন্ট্রাল স্টেডিয়াম যাতে খেলা হবে শুধুমাত্র ৪টি গ্রুপ ম্যাচ এবং যার আসন সংখ্যা ৩৫ হাজার ৬৯৬। এটি নব নির্মাণ হয় ২০১৪ থেকে ২০১৭ সালে।

সব মিলিয়ে যেন বিশ্বের সব দিক অপেক্ষায় ফুটবল যুদ্ধের প্রথম কিকের জন্য।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Related posts

Leave a Comment