সবুজে ভরা বাড়ি! কী ভাবে গাছ লাগানো শুরু করবেন বাড়িতে?

দুবেলা, যশোর রোডের দু’পাশের সবুজ দেখতে দেখতে ফেলুদা তপসেকে কী প্রশ্ন করেছিলেন মনে পড়ে? ‘সমাদ্দারের চাবি’র শুরুটা ভাবুন৷ সত্যিই তো! সবুজ দেখে আমাদের এত ভালো লাগে কেন? আসলে সবুজের সঙ্গে আমাদের আত্মার সম্পর্কটা অনেক পুরনো আর অনেকটা নিবিড়৷ তাই তো গাছপালা আমাদের শুধু চোখের আরামই দেয় না, মেজাজটাই বদলে দেয়৷ কেবলমাত্র বন-জঙ্গলেই নয়, বাড়ির চৌহদ্দিতে এক চিলতে বাগান অথবা ঘরের কোনের ছোট্ট একটা গাছ পরিবেশটাই আমূল বদলে দিতে পারে৷ তবে গাছ লাগাবো বললেই তো আর হল না, তার যত্ন নিতে হবে৷ দিনের ছোট্ট একটা সময় গাছগুলোকে যদি লালন করা যায়, তাহলে নিজেরও একটা ভালো লাগা তৈরি হবে৷ হাতেকলমে বাগান পরিচর্যা শিখতে ইউটিউব টিউটোরিয়ালের জুড়ি নেই৷ কিন্তু ছোট্ট ফ্ল্যাট বা বাড়ি গাছ দিয়ে সাজানোর জন্য এখনই এত সময় দিয়ে কাজ নেই৷ ঘরের মধ্যে গাছ লাগানোর শুরুতে আপনার জন্য রইল দুবেলার বেশ কয়েকটি টোটকা৷ যাতে কোনও আগাম প্রস্তুতি ছাড়াই কাল থেকে আপনি কাজে হাত লাগাতে পারেন৷ কী ভাবে?

  1. ঠিক পাত্র বাছাই

আজকাল নানা ডিজাইনের টব পাওয়া যায় বাজারে৷ ছোট ছোট বিভিন্ন শেপের পাত্রও পেতে পারেন৷ পাত্র মাটির হতে হবে এমন কোনও কথা নেই, কাঠ, প্ল্যাস্টিক এমনকি চিনামাটিরও হতে পারে৷  শর্ত দুটো, এক ছোট হওয়া চাই আর দুই, জল লেগে নষ্ট হলে চলবে না৷

  1. ঠিকমতো গাছ নির্বাচন

ঘরের মধ্যে সব প্রজাতির গাছ বাঁচবে না৷ তবে মোটের ওপরে সব ধরনের ক্যাকটাস টিকে যাবে৷ আর টিকবে এক্স-মাস ট্রি৷ এছাড়া ভালো কোনও নার্সারিতে জানতে চাইলে সহজেই জেনে যাবেন, কোন কোন গাছ ঘরের মধ্যেও ঠিক থাকে৷

  1. আলোর উত্স খেয়াল রাখুন

এক কথায় বলতে গেলে যে কোনও গাছেরই সূর্যালোক জরুরি৷ তবে ঘরের মধ্যে যে সমস্ত গাছ লাগানো হয়, তা অনেক কম আলোতেই স্বচ্ছন্দে থেকে যেতে পারে৷ কেবলমাত্র ফল বা ফুলের গাছ হলে আলাদা নজর দিন৷ জানলা বা দরজা দিয়ে ঘরের যে অংশে অল্প সময় হলেও কিছুটা সূর্যালোক পায়, সেখানে রাখুন টবগুলিকে৷ এছাড়া ছুটির দিনে ঘরের গাছগুলিকে ঘন্টাখানিক রোদ্দুরে রাখতে পারেন৷ প্রয়োজন না পড়লে খুব বেশি নাড়াচাড়া করবেন না৷

  1. হাওয়া বাতাস খেয়াল রাখুন

ব্যালকনি, বারান্দা কিম্বা জানলার সামনে গাছের টবগুলিকে সাজিয়ে রাখতে পারেন৷ মোদ্দা কথা গাছের সুস্বাস্থ্যের জন্য হাওয়া বাতাস চাই৷ বদ্ধ জায়গাতে গাছ ক্রমশ বিবর্ণ হয়ে যেতে পারে৷

  1. নিয়ম করে জল দিন

গাছের পরিচর্যায় সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ কাজ৷ যেমন নিয়ম করে জল দিতে হবে, তেমনই পরিমিত৷ গাছের গোড়ায় বন্যা হলে দু-দিনে শেকড় পচবে সন্দেহ নেই৷ মনে রাখবেন ইন্ডোর গার্ডেনের ক্ষেত্রে পরিমিত জলই যথেষ্ট৷

  1. সোন্দর্যের অলঙ্করণ

মাঝেমঝ্যে গাছের অবাঞ্ছিত পাতা বা ডালপালা কেটে দেবেন৷ যাতে পরিপাটি আর সুন্দর দেখতে লাগে আপনার শখের গেরস্থালি৷

তাহলে কালই একটি টব সহ গাছ নিয়ে বাড়ি ঢুকুন৷ ধীরে ধীরে গাছের সংখ্যা বাড়বে সন্দেহ নেই৷ আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সবুজ হয়ে উঠবে আপনার মন, সবুজে ভরে উঠুক আপনার বাড়ি৷

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Related posts

Leave a Comment