খাওয়া-দাওয়াঃ আজকের রেসিপি কাবলি ছোলার মশলাদার ঘুগনি!

মৌসুমী রায় সরকার, গৃহবধূ, সোনারপুর

দুবেলা খাওয়াদাওয়া, মৌসুমী রায় সরকারঃ ঘুগনি কম বেশি আমাদের সবার বাড়িতেই হয়। কিন্তু সেই ঘুগনিকে যদি একটু অন্য রকম করে আর একটু স্পাইসি অর্থাৎ মশলাদার করে তোলা যায়। তাহলে হয়তো সবার বেশ ভালো ও লাগবে আর একটু ভিন্ন স্বাদের ও লাগবে।

আজকে সেরকমই একটা ঘুগনির রেসিপি তোমাদের সাথে শেয়ার করছি। রেসিপি টা হলো কাবলি ছোলার মশলাদার ঘুগনি।

আজকের এই রেসিপি করতে কি কি উপকরণ লাগবে এবং কিভাবে করতে হবে তা যেনে নেওয়া যাক।

উপকরণ :কাবলি ছোলা 300 গ্রাম, (এক চিমটি সোডা দিয়ে এক রাত জলে ভিজিয়ে রাখতে হবে )। বড় সাইজের পেঁয়াজ দুটি (কুচিয়ে নিতে হবে)। বড় সাইজের 2 টি আলু (ছোট করে কেটে নিতে হবে)। কুচানো নারকেল 1/2 কাপ, কুচানো কাঁচা লঙ্কা 2 টি, ঘন তেঁতুল গোলা 1/2 কাপ, সাদা তেল পরিমান মত, গরম মশলা গুঁড়ো 1 চা চামচ, আদা বাটা 1চা চামচ, চিনি 1 চা চামচ মত, কুচানো ধনে পাতা 1 টেবিল চামচ, নুন ও হলুদ আন্দাজ মত, তেজ পাতা 2 টি।

প্রণালী : প্রথমে কাবলি ছোলা সেদ্ধ করে নিতে হবে। কড়াইয়ে তেল গরম করে নারকেল ও কেটে রাখা আলুটা আলাদা আলাদা করে ভেজে তুলে রাখতে হবে। তারপর ঐ তেলে থেঁতো করা গরম মশলা ও তেজ পাতা দিয়ে তাতে কুচানো পেঁয়াজ গুলো দিয়ে ভেজে নিতে হবে৷ তারপর ঐ ভাজা পেঁয়াজের মধ্যে আদা বাটা, লঙ্কা কুচি, নুন, চিনি ও হলুদ দিয়ে তাতে একটু জল দিয়ে কষতে হবে। তারপর কড়াইয়ের মধ্যে সেদ্ধ ছোলা ঢেলে দিতে হবে। তারপর নেড়ে চেড়ে নিয়ে খানিকটা সেদ্ধ ছোলার জল ঢেলে দিতে হবে কড়াইতে। এক কাপ সেদ্ধ ছোলা আগেই আলাদা করে বেটে রাখতে হবে। ঘুগনি টা যাতে ঘন হয় সেইজন্য এই বাটা ছোলা ঘুগনির মধ্যে ঢেলে দিতে হবে.তারপর ভাজা আলু আর ভাজা নারকেল ঘুগনির মধ্যে ঢেলে দিয়ে কড়াইটা ঢেকে দিতে হবে। কিছু ক্ষণ পর ঢাকনা খুলে ঘুগনি নামিয়ে ফেলতে হবে। ঠান্ডা হলে তেঁতুল গোলা, জিরা ভাজা গুঁড়ো, বিট নুনের গুঁড়ো,লঙ্কার গুঁড়ো, ও কুচানো ধনে পাতা ছড়িয়ে পরিবেশন করতে হবে।

Spread the love
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    11
    Shares

Related posts

Leave a Comment