গুজরাতের বিরুদ্ধে তিন পয়েন্টই পাখির চোখ বাংলার

দুবেলা, নিশান মজুমদারঃঃ    ঈশান পোড়েল ও আকাশদীপ সিংয়ের আগুনের পেশের দাপটে একশো কুড়ি রানে সাত উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে পড়ে গিয়েছিল গুজরাত। মনে হয়েছিল, দেড়শোর গণ্ডিও তারা টপকাতে পারবে না।

কিন্তু মন্দ আলোর জন্য খেলা যখন দ্বিতীয়বারের জন্য বন্ধ হল, তখন কে জানত অষ্টম উইকেটের রজুল ও কালারিয়া অনবদ্য ৪৯ রানের পার্টনারশিপ গড়ে বাংলার বারা ভাতে ছাই ফেলে দেবেন।

খারাপ ভালোর জন্য নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই তৃতীয় দিনের খেলায় যবনিকা পরে। তৃতীয় দিনের শেষে গুজরাত 7 উইকেটে ১৬৯ রান তুলেছে। রজুল ১৯ ও কারিয়া ৩৩ রানে ক্রিজে আছেন। সোমবার ম্যাচের চতুর্থ দিন অন্তিম দিন গুজরাত কে ২০০ রানের মধ্যে অলআউট করতে পারলে বাংলার সামনে প্রথম ইনিংসে লিড নিয়ে ৩ পয়েন্ট পাওয়ার সুযোগ থাকবে।

গুজরাট এদিন ৪৬ রানে ১ উইকেট নিয়ে খেলতে নামে প্রিয়াঙ্ক পাঞ্চাল(৪০) ও সমীত গোহেল(২০) আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে শুরু করেন। চাপ বাড়ছিল বাংলার উপর। ঠিক তখনই আকাশদীপ ও ঈশান জুটি বেঁধে ৪১ রানের মধ্যে গুজরাটের ৬ ব্যাটসম্যানকে আউট করেন। কিন্তু মুকেশ কুমার কিংবা অয়ন ভট্টাচার্য্য প্রত্যাশামতো বল করতে না পারায় ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ পেয়ে যায় গুজরাত।

প্রাক্তন ক্রিকেটাররা অনেকে বলেছেন এরকম পরিস্থিতিতে অশোক দিন্দার মতো অভিজ্ঞ পেশার এর দরকার ছিল। ঈশান পোড়েল এই ম্যাচ খেলে নিউজিল্যান্ড উড়ে যাবেন। তার ফলে বাংলার পেস আক্রমণ আরো দুর্বল হবে। সে ক্ষেত্রে অশোক দিন্দাকে হয়তো দরকার হবে। কিন্তু করুন লাল কিংবা বোলিং কোচ রণদেব বসুর কথা শুনে মনে হল, দিন্দা চ্যাপ্টার ক্লোজড। আকাশের মত তরুণ ও প্রতিভাবান পেশারদেরি আরও বেশি করে সুযোগ দিতে চান।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Related posts

Leave a Comment