“গুমনামি” ছবির টিজার উষ্কে দিল নেতাজির অন্তর্ধান রহস্যকে!

দুবেলা,সম্পূর্ণা সাহাঃ নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোসের মৃত্যু রহস্য নিয়ে জোট খোলা কোনও মতে সম্ভব হয়েছিল কেন্দ্রের তরফ থেকে ১৮ অগাস্ট ১৯৪৫ সালে নেতাজির মৃত্যু হয়েছিল বলে ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু সৃজিত মুখার্জি পরিচালনায় “গুমনামি” ছবি টিজার আবার সেই বির্তককে আবার উষ্কে দিল।

ছবির টিজারে দেখানো হয়েছে গুমনামি বাবার সঙ্গে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোসের সাদৃশ্যের কথা, বলা হয়েছে তিনি সন্ন্যাসী হয়ে ভারতবর্ষে ঠুকে ছিলেন। কিন্তু এগুলো শুধুই নেতাজিকে নিয়ে এক গবেষকের ধারণা বলেই দেখানো হয়েছে। আর সে কারণেই এই টিজার নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর অন্তর্ধান রহস্য নিয়ে নতুন করে চর্চা শুরু করেছে।

ফরওয়ার্ড ব্লকের সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত বিশ্বাস প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠির মাধ্যমে আর্জি জানিয়েছেন নেতাজির অন্তর্ধান রহস্য উদঘাটনে নতুন করে কমিশন গড়ার । কেন্দ্রের কোনও বই বা অন্য কোথাও নেতাজির ‘মৃত্যুদিন’ যাতে আর উল্লেখ করা না হয় তা-ও নিশ্চিত করার অনুরোধ করেছেন প্রধানমন্ত্রীকে। গুমনামি বাবা’র সঙ্গে নেতাজির সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টার বিরোধিতাও করা হয়েছে ফরওয়ার্ড ব্লকের তরফ থেকে। চিঠি দেওয়া হয়েছে সেন্সর বোর্ডকেও।

ফরওয়ার্ড ব্লকের রাজ্য সম্পাদক নরেন চট্টোপাধ্যায়ের জানান, ‘‘ফৈজাবাদের ‘গুমনামি বাবা’র সঙ্গে আরএসএসের যোগের কথা চালু আছে। আমরা বলেছি, বাঙালি কোনও পরিচালকের ছবির মাধ্যমে সেই গুমনামি বাবার সঙ্গে নেতাজির সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করা হোক, এটা চাই না।’’
সৃজিত মুখার্জির বক্তব্য, ” ছবিতে কোনও ভাবেই নেতাজিকে ‘হেয়’ করা হয়নি। নেতাজি নিয়ে মনোজ মুখোপাধ্যায় কমিশনের প্রসঙ্গ ছবির চরিত্রগুলির আলোচনায় রাখা হয়েছে শুধু”।

তাও ছবি নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি এড়াতে মুখোমুখি বসতে রাজি সৃজিত। ফরওয়ার্ড ব্লকের নেতারা অনুরোধ করেছেন, ছবির ট্রেলারও সেই আসরে দেখানো হোক। পরিচালক তাদের জানিয়েছেন প্রযোজক সংস্থা সম্মতি দিলে তখন ট্রেলারও দেখানো হবে।

যত দূর জানা যাচ্ছে নরেন বাবুর সঙ্গে সৃজিত মুখার্জি কথা হয়েছে এবং সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহের পর কলকাতার কোনও প্রেক্ষাগৃহে সৃজিত এবং প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, ফরওয়ার্ড ব্লক-সহ অন্যদেরও মুখোমুখি হবেন বলে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Related posts

Leave a Comment