থ্যালাসেমিয়া নিয়ে সচেতনতা শিবির!

দুবেলাঃ ১২ বছরের শশাঙ্কের কথা মনে আছে আপনাদের। ওই নাবালক প্রাণঘাতী থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত হয়। তার ওই রোগ জীবনের শেষ পর্যায়ে নিয়ে যায়। তার জীবনের একটি ইচ্ছে ছিল। এই থ্যালাসেমিয়ায় জন্য হয়তো সেই ইচ্ছেপূরণ হবে না। তাই সেই ইচ্ছেপূরণ করে বেঙ্গালুরু পুলিশ। ১২ বছরের শশাঙ্কের ইচ্ছে ছিল পুলিশ ইন্সপেক্টর হওয়া। শশাঙ্কের সেই ইচ্ছেপূরণ হয়। একঘণ্টার জন্যে পুলিশের পোশাক পরে ইন্সপেক্টর পদে বসেছিল।

আর এই থ্যালাসেমিয়ায় যাতে আগামী প্রজন্মের মধ্যে থাবা বসাতে না পারে তার জন্য থ্যালাসেমিয়া সম্পর্কে ছাত্রছাত্রীদের সচেতন করতে তাদের নিয়ে সচেতনতা শিবির আয়োজন করেছিল নেতাজি নগর কলেজের NNS ইউনিট। তাদের সঙ্গে যৌথ ভাবে সহযোগিতা করে রানাঘাট থ্যালাসেমিয়ায় ডিটেকসন সেন্টার।

এই শিবিরে হাজির ছিলেন কলেজের প্রিন্সিপাল ডঃ বিশ্বজিৎ ভদ্র সহ কলেজের অন্যান্য অধ্যাপক , অধ্যাপিকা ও ছাত্রছাত্রীরা। তাদের থ্যালাসেমিয়া পরিক্ষা করা হয়।

নেতাজি নগর কলেজের NNS ইউনিট প্রোগাম অফিসার   ডঃ ভজন চন্দ্র বর্মন বলেন আমরা ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে থ্যালাসেমিয়া নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করার জন্যই এই শিবির। আগামী প্রজন্মের কাছে থ্যালাসেমিয়া সম্পর্কে নানা তথ্য এই শিবিরে মাধ্যমে পৌচ্ছে দেওয়া যাতে তারা এই বিষয়ে সজাগ থাকে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Related posts

Leave a Comment