শেয়ারে বিনিয়োগ কেন?

দুবেলা, নাগরিকের পেনশনের পুঁজি সরকার যথন শেয়ার বাজারে বিনিয়েগের সিদ্ধান্ত নেয়, তখন কী হট্টোগোলই না পড়ে যায়৷ বিরোধীদের দাবি থাকে, বাজারের ঝুঁকি কেন সাধারণের ওপরে চাপবে? আশঙ্কা, যে কোনও সময়ে জমা রাশি তো কমে যেতেও পারে৷ আর অন্যদিকটা ভেবে দেখেছেন? ওয়ারেন বাফের মতো দুনিয়ার সবচাইতে ধনী মানুষ, এমনকি রাকেশ ঝুনঝুনওয়ালা বা রামদেও আগরওয়ালের মতো মানুষের বিশাল সম্পত্তির উত্স এই বাজার৷ শেয়ারে বিনিয়োগ করেই তারা আজ বড় লোক৷ তাহলে কোনটা ঠিক? কেন মনে করা হয় শেয়ারে সাধারণের বিনিয়োগ নিমেষে কমে যেতে পারে? অন্যদিকে কী ভাবেই বা এক শ্রেণির মানুষ নিয়মিত শেয়ার বাজার থেকে উপার্জন করে থাকেন? রহস্য না? তবে একবার রহস্যের কিনারা করতে পারলে আপনি কিন্তু গুপ্তধনের সন্ধান পেয়ে যাবেন৷ এখানে সম্পদের বৃদ্ধি আর মুনাফার হার কিন্তু কখনও কখনও কল্পনার থেকেও বেশি৷ শুধুই কি উপার্জন? অন্য অনেক কারণে শেয়ারে বিনিয়গ করা যেতে পারে৷

যারা শেয়ারে বিনিয়োগের পক্ষে সওয়াল করেন তারা কিন্তু ফেরতযোগ্য লাভের ওপরেই জোর দেন৷ একবার যদি চোখ বুলিয়ে দেখে নেন আপনার ভালো লাগা বেশিরভাগ সংস্থার শেয়ার গেল পাঁচ বছরে যে পরিমার মুনাফা দিয়েছে তা প্রথাগত কোথাও বিনিয়োগ থেকে পাওয়া হয়ত অসম্ভব৷ গুগুল সার্চ করে একবার দেখে নিতে পারেন৷ আরও দীর্ঘমেয়াদে মুনাফা দেখলে আপনার চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যেতেই পারে৷ তবে এই যুক্তিটা খুবই পুরনো আর জানা৷ যে কথাটা অনেকে বলতে ভুলে যান তা হল, শেয়ারে বিনিয়োগের ঝুঁকি কিন্তু অন্য সমস্ত বিনিয়োগের থেকে অনেক গুণ বেশি৷ শুধু ঝুঁকির ভয়েই কি বড় মুনাফা দেখেও হাত গুটিয়ে বসে থাকবেন? তাহলে কী করা উচিত্? শেয়ার-সংস্থা-ব্যবসা এসব বুঝতে হবে৷ মোদ্দা কথা কেন বিনিয়েগ তা জানতে হবে৷ আর সঠিক পদ্ধতিতে জমা রাশি বিভিন্ন খাতে ভাগ করে দিতে হবে৷ আসল কথা হল, সব ডিম এক ঝুড়িতে রাখা নয়৷ কথাটা ওয়ারেন বাফে সাহেবের৷

এছাড়া শেয়ারে বিনিয়োগ করে আদতে আপনি দেশের শিল্প উত্পাদনে উত্সাহ দিতে পারেন৷ আপনার বিনিয়োগের অঙ্ক দেশের শ্রীবৃদ্ধির কাজে লাগতে পারে৷ নিজে ব্যবসা না করেও কোম্পানির অংশীদারিত্ব পাবেন শেয়ারের মাধ্যমে যা পরোক্ষে আপনার ব্যবাস ক্ষিদে মেটাবে সন্দেহ নেই৷

তবে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ঝুঁকির কথা মাথায় রেখে গোড়ার দিকে খুবই নগন্য আর বাড়তি অর্থ বিনিয়োগ করা উচিত৷ বিনিয়োগ হতে পারে মাসিক কিস্তিতেও৷ দিনে দিনে জ্ঞান বাড়বে, শেয়ার সম্পর্কে জানবেন, সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়বে বিনিয়োগও৷ এমনকি ব্যঙ্কের মতোও এখানে সেভিংস হিসেবে কিছু টাকা বিনিয়োগ করতে পারেন৷ কী ভাবে করবেন বিনিয়োগ? কী ভাবে ভাল শেয়ার বাছবেন? শেয়ার কেনাবেচার জন্য অ্যাকাউন্ট খুলতে হলে কী কী করতে হয়? এসব জানতে শেয়ার সংক্রান্ত পরবর্তী কলামে চোখ রাখুন৷

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ – বাজার ও শেয়ার সংক্রান্ত ধারণা প্রতিবেদকের নিজস্ব৷ শেয়ার বাজারে আপনার কোনও ধরনের বিনিয়েগ বা সওদা নিয়ে প্রতিবেদক বা দুবেলা কর্তৃপক্ষ কোনভাবেই দায়ী থাকবে না৷  নিজের বুদ্ধি, বিবেচনা, অভীজ্ঞতা অথবা আপনার অর্থনৈতিক উপদেষ্টার পরামর্শ অনুযায়ী বিনিয়োগ করুন৷

Spread the love

Related posts

Comment here