করোনার ত্রাসে ঘরবন্দী, কিভাবে কাটছে টলি সেলেব রুক্মীনির সময়?

দুবেলা, সুচিস্মিতা চন্দ্রঃ করোনার ভয়ে ত্রস্ত গোটা বিশ্ব! প্রায় প্রতিটা দেশ লকডাউন! করোনার ভয়ে এখন প্রত্যেকেই কার্যত ঘরবন্দী অবস্থায় রয়েছেন। তাই টলিউডের সেলেবরাও নিজেদের মতোন করেই কাটাচ্ছেন ঘরবন্দী সময়। কেউবা পড়ছেন বই, কেউবা করছেন রান্না, কেউ-বা নিজের মতন সাজিয়ে-গুছিয়ে রাখছেন তার নিজের ঘরটি। রুক্মিণী মৈত্র এই ঘরবন্দী দশায় তার মায়ের হাতে গুছিয়ে দিচ্ছেন সমস্ত কাজ। তিনি কাজ না থাকলে বাড়িতে থাকতেই বেশি পছন্দ করেন।

তাই এখনই ঘর বন্দী দশায় গুছিয়ে রাখছেন তার ওয়ারড্রব কখনো করেছেন নিজের পছন্দের মতন রান্না, আবার অন্যান্য সেলেবদের মতো নিজের হাতে বাসন মাজছেন, কখনো নিজের পছন্দের গল্পের বই পড়ে সময় কাটাচ্ছেন। গত ১৬ই মার্চ তিনি শেষ শুটিং সেরে সুইজারল্যান্ড থেকে ফিরেছেন। প্রথমদিকে তিনিও এই করোনা ভাইরাসের বিষয়টি অতটাও গুরুত্বের সঙ্গে দেখেননি। এই করোনা ভাইরাসকে নিয়ে এখন সারা বিশ্বের ছবিটা ভয়ানক, ইটালি একেবারে এখন মৃত্যু পুরী।

যেভাবে আমাদের প্রশাসন, চিকিৎসকরা যুধ্দরীতির তৎপড়তায় গোটা বিষয়টিকে সামলাচ্ছেন তার অভুতপুর্ব প্রশংসা করলেন এবং ধন্যবাদ জানালেন। সবাইকে আহ্বান জানালেন এই লড়াইয়ে সামিল হওয়ার জন্য। তার মতে যেভাবে আমরা প্রতিনিয়ত প্রকৃতির ক্ষতি করে এসেছি যেভাবে গোটা পরিবেশকে ধ্বংস করেছি এক লহমায়, এবার প্রকৃতির ঘুরে দাঁড়াবার সময় এসে গেছে। চোখের পলক পড়তেই ইতালি এখন মৃত্যুপুরী! করোনার জেরেই মৃত্যুতে চীনকে ছাড়িয়ে গেছে ইতালি। এই ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যেই দিয়ে যাচ্ছে আমাদের দেশও।

রুক্মিণী আরো বললেন এই লড়াইটা আমদের সকলের, সকল্কে একসঙ্গে লড়তে হবে এবং জিততে হবে। তিনিও সকলকেই সর্তক হতে বলেছেন এবং সচেতন থাকতে বলছেন যাতে কিছুটা হলেও এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে প্রশাসন এবং চিকিৎসকদের কাজটা কিছুটা সহজ করতে বলেছেন। যাতে আমরা সবাই সুস্থ থাকি।

Spread the love

Related posts

Comment here