আজকের গল্পঃ কে বলে নারী তুমি অস্পৃশ্য অশুচি ???

কে বলে নারী তুমি অস্পৃশ্য অশুচি ???

পুরুষ শাসিত সমাজে নারীর প্রতি অশ্রদ্ধার নিদর্শন ফুটে ওঠে বিভিন্ন প্রান্তে । কিন্তু নারীদের কী অবস্থান ?

বেশিরভাগ নারীর কাছেই তার পিরিয়ড মানেই লজ্জা – ঘৃণা মিশ্রিত অন্ধকারময় কয়েকটি দিন । আসলে সমাজ জন্মলগ্ন থেকেই নারীকে বোঝায় যে নারীজন্ম মানেই যেন একটা অভিশাপ ! ! !

কিন্তু নারীদেরও বুঝতে হবে পিরিয়ড তাদের কাছে কোনো লজ্জার নয় বরং তা অনেক সম্মানের এবং তা তাদের কাছে মাতৃত্বের প্রতীক !

পিরিয়ড হলেই নাকী মেয়েরা ঠাকুর ছুঁতে পারে না , অঞ্জলী দিতে পারে না , মন্দিরে যেতে পারে না , কিন্তু যে নারী শক্তির আরাধনা করা হয় , তাদেরকেই বঞ্চিত করা ? সকলেই তো ঈশ্বরের সন্তান ! ঈশ্বর কী কখনো সন্তানকে দূরে সরিয়ে রাখতে পারে ?

কোনো মেয়ে যদিও কুসংস্কারের আইন ভাঙতে চায় , তাহলে তাদের মা , মাসি – পিসিরা বাঁধা দেয় , পারলে মেয়েটিকে মারতেও কুণ্ঠা বোধ করে না । আসলে মুখে যতই আমরা অর্ধেক আকাশের কথা বলি , কিছু কিছু নারী হয়তো এখনো সমতলে থাকতেই ভালোবাসে । নারীদের অগ্রগতির পথে বাঁধা হয়তো কিছুক্ষেত্রে নারীরাই !

এই ক্ষেত্রেই আসে শবরীমালা প্রসঙ্গ । কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নকে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেছিলো যে , ” লোকসভা নির্বাচনে আপনাদের খারাপ ফলের জন্যে অন্যতম কারণ শবরীমালা ইস্যুতে আপনাদের সরকারের অবস্থান , এই বিষয়ে কী বলবেন ? ? ? ” তখন পিনারাই বিজয়ন বলেন যে , ” আমরা কত আসন পেয়েছি লোকসভা নির্বাচনে এটা মানুষগুলো মনে রাখবেনা কিন্তু ১০০ বছর পর শবরীমালা ইস্যুতে আমাদের সরকারের পদক্ষেপ ইতিহাস বইতে লেখা থাকবে ”

নারী তোমার মধ্যে থেকে প্রাণের সৃষ্টি হয় । যে নারী শক্তি অসুর দমন করে তাদের কে বঞ্চিত করবে ? ? ?
কে তোমাদের অস্পৃশ্য বলবে ? ? ?

আজকের লেখকঃ রূপক চ্যাটার্জী

Spread the love

Related posts

Comment here